কিশোরগঞ্জ সংবাদদাতা : কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে কৃষক আবু বকর (৫৭) হত্যা মামলার দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন রামদী ইউনিয়নের মুজরাই মধ্যপাড়া গ্রামের রবি মিয়ার ছেলে বাবুল (১৮) ও আলমের ছেলে রিশাদ (১৬)।

সোমবার দুপুরে পার্শ্ববর্তী নরসিংদী জেলার রায়পুরা থেকে বাবুল ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থেকে রাশেদুল আলম রিশাদকে গ্রেফতার করা হয়।

এক প্রেস ব্রিফিংয়ে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কুলিয়ারচর উপজেলার বীর কাশিমনগর ফেদাউল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা হাসিনা বেগম কিছু দিন আগে দুর্ঘটনায় আহত হন। মুজরাই মধ্যপাড়া গ্রামের বাড়িতে ওই শিক্ষিকাকে দেখতে আসে বিদ্যালয়ের চার ছাত্র-ছাত্রী। এ সময় রাস্তায় ছাত্রীদের অশালীন কথাবার্তা বলেন একই গ্রামের বাবুল, রাশেদুল আলম রিশাদ, পারভেজসহ কয়েকজন কিশোর।

ঘটনাটি শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষিকা হাসিনা বেগমকে জানায়। হাসিনা বেগম বিষয়টি আবু বকরের স্ত্রী আনিছা বেগমকে বলেন। আনিছা বেগম বিষয়টি নিয়ে রিশাদের বাবা আলমের কাছে বিচার দেন। এ নিয়ে আলম তার ছেলে রিশাদকে শাসন করেন। তাতে ক্ষিপ্ত হয়ে আসামিরা গত বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) রাত আনুমানিক ৮টার দিকে আনিছা বেগমের বাড়িতে গিয়ে আনিছা বেগমকে গালিগালাজ করিতে থাকে। এসময় আনিছার স্বামী আবু বকর বাড়িতে গিয়ে কী হয়েছে জানতে চান। তখন আসামিরা আবু বকরকে মারপিট করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় চারজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে নিহতের ছেলে বায়েজিদ বাদি হয়ে কুলিয়ারচর থানার একটি মামলা দায়ের করেন। অপর দুই আসামি পারভেজ ও আলম মিয়াকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার।