ভালুকা প্রতিনিধি : সরকার ঘোষিত নতুন বেতন কাঠামো,ছুটির টাকা,মেডিক্যাল ভাতাসহ বিভিন্ন দাবীতে ময়মনসিংহের ভালুকায় রিদিশা স্পিনিং মিল ও রিদিশা ব্লান্ডেড ইয়ার্ণ লিঃ এর শ্রমিকরা শনিবার সকাল থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের জামিরদিয়া এলাকায় ৪ঘন্টা অবরোধ করে রাখে। এ সময় মহা-সড়কের দুই পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

শ্রমিক ও পুলিশ সূত্রে জানাযায়,উপজেলার জামিরদিয়া এলাকায় অবস্থিত রিদিশা স্পিনিং মিল ও রিদিশা ব্লান্ডেড ইয়ার্ণ লিঃ এর ১হাজার ৬শত শ্রমিক দীর্ঘদিন যাবৎ বেতন বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন দাবী করে আসছিল। তাদের দাবী না মানায় শনিবার ভোর থেকে কাজে যোগদান না করে আন্দোলন শুরু করে। এ সময় শ্রমিকরা বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বাঁশ ফেলে রাস্তার দ্ইু পাশ অবরোধ করে রাখে। আন্দোলনরত শ্রমিকরা ভোরসাড়ে ৫টা থেকে মহা অবরোধ করে রাখে। এ সময় মহা সড়কের দুই পাশে বাস,ট্রাক,প্রাইভেটকার সহ বিভিন্ন যানবাহনের দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে শিল্প পুলিশ,থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মহাসড়ক থেকে শ্রমিকদেরকে সরানোর চেষ্টা করে। কিন্ত শ্রমিকদের দাবী না মানা পর্যন্ত মহাসড়ক থেকে তারা সরে যাবে না। এ সময় মিলের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাগণ অফিসে উপস্থিত না থাকায় প্রশাসনের লোকজন কোনো সিদ্ধান্ত দিতে না পারায় মহাসড়ক থেকে শ্রমিকদের সরাতে বিলম্ব হয়। সকাল সাড়ে ৯টার পর বহিরাগতদের লাঠিচার্জে শ্রমিকরা ছাত্রভঙ্গ হয়ে মিল গেইটের সামনে অবস্থান নেয়। ময়মনসিংহ শিল্প পুলিশ জোন-৫ এর পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) সোমাইয়া আক্তার,ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দ,স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চু উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদের দাবী মেনে নেয়ার আশ^াস দিলে শ্রমিকরা কাজে যোগদান করেন।

আন্দোলনকারী শ্রমিকরা বলেন,মিল কর্তৃপক্ষ আমাদের বেতন বাড়ায়না, দুই বছর যাবৎ ছুটির টাকা দেয়া না, যে বেতন পাই উচ্চ মূল্যের বাজারে সেই টাকা দিয়ে কী আমাদের সংসার চলে? নিজেরা অসুস্থ হয়ে পড়লে ছুটি দেয় না। নিজেদের আতœীয় স্বজন কেউ মারা গেলেও মিলে না।শ্রমিকরা অসুস্থ হয়ে কাজে যোগদান করতে না পারলে ওই দিনের বেতনের টাকা কর্তন করে নেয়।

কোম্পানির ভাইস প্রেসিডেন্ট মিজানুর রহমান জানান,সরকার ঘোষিত নতুন বেতন কাঠামো গার্মেন্ট কোম্পানি গুলোতে বলবত হলেও স্পিনিং মিল গুলোতে বলবত হয়নি। যে কারণে আমরা শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধি করিনি।

শ্রমিকদের ২০২৩সালের বাৎসরিক ছুটির টাকা এ মাসের থেকেই দেয়া শুরু করবো।

শিল্প পুলিশ ময়মনসিংহ জোন-৫ এর পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান জানান, মিল কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের দাবী তারা মেনে নিয়েছেন। এখন পরিস্থিতি শান্ত, শ্রমিকরা কর্মস্থলে যোগদান করেছেন।