আতাউর রহমান জুয়েল : করোনা পরিস্থিতিতে কোন রকম স্বাস্থ্য সুরক্ষা ছাড়াই ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন মসিকের পরিচ্ছন্নকর্মীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মেডিক্যালসহ সব ধরণের বর্জ্য অপসারনের কাজ করে যাচ্ছে।

কর্মীদের অভিযোগ, সিটি কর্পোরেশর থেকে তাদের জন্য পিপিইসহ অন্যান্য সুরক্ষা সরঞ্জামাদি দেয়া হয়নি। সুরক্ষা ছাড়া বর্জ্য অপসারণের কাজে নিয়োজিত পরিচ্ছন্নকর্মী এবং তাদের পরিবার স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছেন বলছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

শনিবার(২৭জুন) সকালে সরেজমিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বর্জ্য জমিয়ে রাখা ঘরে গিয়ে দেখা যায়, পিপিইসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষার কোন ব্যবস্থা ছাড়াই ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নকর্মীরা প্রতিদিনের মতো হাসপাতাল ও বেসরকারী ক্লিনিকের মেডিক্যাল বর্জ্র অপসারণের কাজ করতে। ওই ঘরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ব্যবহৃত পিপিই, মাস্ক, গ্লাভস ছাড়াও অন্যান্য মেডিক্যাল বর্জ্য অনায়াসে অপসারন করছে কর্মরত পরিচ্ছন্নকর্মীরা। ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নকর্মী অন্তর হরিজন জানান, করোনা সংক্রমণ বাড়লেও ভয়াবহ ঝুঁকিতে থাকা আমাদের মতো কর্মীদের জন্য সিটি কর্পোরেশন থেকে কোন সুরক্ষার ব্যবস্থা করা হয়নি। জীবিকার তাগিদে একরকম জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে দাবি অন্তর হরিজনের।

media image
ছবি

পলাশ হরিজন জানান, সম্পূর্ণ সুরক্ষা ছাড়াই তারা কাজ করে যাচ্ছেন। হাসপাতালের ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের ব্যবহৃত পিপিই, মাস্ক, গ্লাভস ছাড়াও অন্যান্য মেডিক্যাল বর্জ্য তাদের অপসারন করতে হচ্ছে। সব সময় আতংঙ্কের মধ্যেই তাদের কাজ করতে হয় দাবি করে তিনি আরও জানান, কাজ শেষে বাসায় গেলে করোনার সংক্রমনের ভয়ে ছেলে.মেয়ে ও বউ কাছে আসতে চায় না। সিটি কর্পোরেশন থেকে কোন কিছু না দেয়ায় খুব কষ্টের মধ্যে দিন কাটছে জানায় পলাশ।

মহানগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডের রাস্তা, ড্রেন, অলিগলি পরিস্কার পরিচ্ছন্ন কাজে নিয়োজিত আছে প্রায় ৭শ’ পরিচ্ছন্নকর্মী। স্বাস্থ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা না করে বর্জ্র অপনারণের কাজ করায় কর্মীসহ পরিবারের সদস্যরাও স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছে দাবি করে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মমিনুর রহমান জিন্নাহ বলেন, করোনাকালীন মহামারীতে পরিচ্ছন্নকর্মীদের বর্জ্য অপসারণের কাজে পাঠানোর আগে অবশ্যই তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। পিপিই ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি ছাড়া মেডিক্যাল বর্জ্য অপসারণ কাজ করলে কর্মীরাসহ পরিবারের সদস্যরা করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিতে থেকেই যায়। এই বিষয়টি সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষকে গুরুত্ব সহকারে নেয়া উচিত।

পরিচ্ছন্নকর্মীদের সুরক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে দাবি করে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ইকরামুলহক টিটু জানান, বর্জ্য অপসারণের সময় কর্মীরা সুরক্ষার সামগ্রী ব্যবহার করছে কিনা সেটা তদারকির ব্যবস্থা করা হবে। তবে যদি সুরক্ষা সামগ্রী দেয়ার ক্ষেত্রে কোন ঘাটতি থাকে তবে তা পূরণের ব্যবস্থা করা হবে জানান তিনি।