শেখ শামীম : নেত্রকোণার কলমাকান্দায় টানা দুইদিন ভারী বর্ষণে আমন ধানের জমি নিমজ্জিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার সকাল থেকে থেমে থেমে টানা দুইদিন ভারী বর্ষণের কারণে উপজেলার সীমান্তবর্তী গনেশ্বরী নদী, মঙ্গলেশ্বরী নদী, মহাদেও নদী ও পাঁচগাও ছড়ায় পাহাড়ি ঢলের কারণে উব্দাখালী নদীর পানি ৯ সে.মি. বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে বিপদসীমার ৩০ সে.মি. নীচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, গত মঙ্গলবার সকাল থেকে থেমে থেমে টানা ২ দিন ভারী বর্ষণে কারণে উপজেলার কলমাকান্দা, রংছাতি, খারনৈ, নাজিরপুর ইউনিয়নের পানি বৃদ্ধির ফলে নিম্নাঞ্চলের সদ্য রোপন করা আমন ধানের ক্ষেত ২২০ একর পানিতে নিমজ্জিত। ভারি বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের অব্যাহত থাকলে আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান কৃষকরা।

কলমাকান্দা সদর ইউনিয়নের চিনাহালা গ্রামের কৃষক আবুল হাশেম (৭৫) বলেন, কিছুদিন আগে অনেক আশায় ১৮ কাঠা জমিতে আমন ধান রোপন করেছিলাম। কিন্তু পানি বৃদ্ধির ফলে রোপন করা আমন ধান ক্ষতি হয়ে গেল। আমার বয়সে এসময় এরকম বৃষ্টি হতে খুব কমই দেখেছি।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ ফারুক আহমেদ নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, এ বছর উপজেলায় ১৫,২৪০ হেক্টর জমিতে আমন ধান রোপন করা হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে নিম্নাঞ্চলে ২২০ একর আমন ধান জমি নিমজ্জিত হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে রংছাতি ইউনিয়নে বেশি নিমজ্জিত হয়েছে। ভারি বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের অব্যাহত থাকলে আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।