আরিফ আহমেদ : জলাবদ্ধতার হাত থেকে ফসলি জমি রক্ষায় বৃহস্পতিবার সকালে গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে এলাকাবাসী। গৌরীপুর-রামপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের উপর উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের দাড়িয়পুর-কৃষ্ণপুর গ্রামের সীমানাস্থলে অবস্থিত সরকারি কালভার্র্টের নিচ দিয়ে বিভিন্ন মৌজার প্রায় ৬ শত একর ফসলি জমির অতিরিক্ত পানি নির্গত হয়।

কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি শুধুমাত্র তার ব্যাক্তিগত সুবিধার্থে ব্রীজটি প্রবেশ মুখের প্রায় অর্ধেক একটু একটু করে মাটি দিয়ে ভরাট করে ফেলে। যার ফলে অতিবৃষ্টিতে পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হয়ে জলাবদ্ধতার আশংকার সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির প্রবাহ আরও বৃদ্ধি পেলে পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হবার কারনে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে সমগ্রএলাকার ফসলি জমি সম্পূর্ণ পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ার ভয়ে আতংকিত হয়ে পড়েছে কৃষকরা। যে কারনে এলাকাবাসী ব্রীজটির প্রবেশ মুখের মাটি অপসারণ করে পানি প্রবাহের গতি স্বাভাবিক করে জলাবদ্ধতার হাত থেকে তাদের কর্ষ্টার্জিত ফসল রক্ষার জন্য গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান মারুফ বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে।

স্মারকলিপি হাতে পাবার পর তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে কৃষকদের অভিযোগের সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হন।এ সময় তিনি নতুন করে কেও যেন আর ব্রীজে মাটি ফেলে ভরাট বা পানি প্রবাহে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে না পারে সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে কৃষকদের আশ্বস্ত করেন।