স্টাফ রিপোর্টার : আর্থিক দুর্নীতি, স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির হিসাব বিবরণী, ব্যাংকের গচ্ছিত টাকার হিসাব বিবরণী দাখিল না করা, জমি সংক্রান্ত ও কর্মচারী নিয়োগ সংক্রান্ত কাগজ পত্রাদী বুঝিয়ে না দেওয়াসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে সদ্য সরকারিকৃত শেরপুরের নকলা হাজী জালমামুদ কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ময়মনসিংহ অঞ্চলের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যামিক উপ-পরিচালক (কলেজ) এর প্রফেসর ড. বিমল চন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে একটি দল তদন্ত শুরু করে। অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. লুৎফর রহমান এ কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে ২০১৫ সালের ১৭ আগস্ট যোগদান করেন এবং ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর অবসরে যান।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর উপ-পরিচালক প্রফেসর ড. বিমল চন্দ্র সরকার সাংবাদিকদের তদন্তের সত্যতা স্বীকার করে জানান, আমরা অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে আজ তদন্তে এসেছি।

তবে সদ্য সরকারিকৃত হাজী জালমামুদ কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. লুৎফর রহমান বলেন, চাকুরীকালীন সময় ভুলট্রুটি হতেই পারে। প্রতিষ্ঠান যদি আমার কাছে কোন অর্থ পায় তা আমি ১৫ দিনের মধ্যে পরিশোধ করে দিব।