তাড়াইল প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার দিগদাইড় ইউনিয়নের কল্লা ভাদেরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে ২ লাখ টাকা আত্মসাতের লিখিত অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর করা বিদ্যালয়ের স্থানদাতা আব্দুল হাসেম ও ছাত্র অভিভাবক ধনু মিয়ার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কল্লা ভাদেরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলী রেজা ও সভাপতি দুলাল মিয়া ২০১৯/২০ অর্থ বছরের বৃহৎ মেরামতের দেড় লাখ টাকা ও স্লীপের ৫০ হাজার টাকা বিদ্যালয়ের যত সামান্য কাজ করেই বাকী টাকা আত্মসাত করিয়াছেন।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, প্রধান শিক্ষক আলী রেজা ও সভাপতি দুলাল মিয়া যোগসাজশে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন কক্ষ রঙ করেই বাকী টাকা আত্মসাত করিয়াছেন। বিগত বৎসরের স্লীপের টাকা দিয়েও কোনো কাজ করেন নাই। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির সাথে জড়িত। স্কুল কমিটির সভাপতি দুলাল মিয়ার কোনো সন্তানাদি নাই। সে কোনো ছাত্রের অভিভাবকও না।

উপজেলার কল্লা ভাদেরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলী রেজার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অভিযোগটি সম্পৃর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। বিদ্যালয় মেরামতের টাকা দিয়ে বিদ্যালয়ের কাজ করা হচ্ছে এবং স্লিপের টাকা দিয়ে শহীদ মিনার তৈরী করা হবে।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার ফাতেমা সুলতানার কাছে অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কল্লা ভাদেরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলী রেজা ও সভাপতি দুলাল মিয়া ২০১৯/২০ অর্থ বছরের বৃহৎ মেরামতের দেড় লাখ ও স্লীপের ৫০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগটি আমি হাতে পেয়েছি। তদন্দ করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা করা হবে।