মধুপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের মধুপুরের মির্জাবাড়ী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ভূয়া কাজীদের দ্বারা বাল্য বিবাহ সহ দীর্ঘদিন যাবৎ ভূয়া কাবিন করে আসছেন কাজী মফিজ উদ্দিন। জানা যায় সাবেক নিকাহ রেজিষ্টার মফিজ উদ্দিন মধুপুর পৌরসভার ১ নং ও ২ নং ওয়ার্ডের কাজী হিসেবে তিনি গত ২৪ জুলাই ২০০২ সালে নিয়োগ পাওয়ার পর গত। তারিখে অধিক্ষেত্রের বাহিরে বদলীআটা সিনিয়র মাদ্রাসায় চাকুরী করার কারনে আইন মন্ত্রণালয় থেকে তার নিকাহ রেজিস্টার লাইসেন্স বাতিল হয়। বাতিল হওয়ার পর হতেই মধুপুরের বিভিন্ন এলাকায় বহু সহকারী নিয়োগ দিয়ে ভূয়া কাবিন করে আসছেন।

মধুপুর পৌর সভার ৭,৮,৯, নং ওয়ার্ডের নিকাহ রেজিস্টার আব্দুল কদ্দুছ বর্তমানে মির্জাবাড়ী ইউনিয়নের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত কাজী। তিনি জানান, যে সমস্ত বাল্য বিবাহ তিনি করান না সেসমস্ত বাল্য বিবাহগুলো মফিজ কাজী ও তার সহযোগীদের নিয়ে বাল্য বিবাহগুলো গোপনে করে আসছেন। গত ২৩ নভেম্বর মির্জাবাড়ী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডে বাল্য বিবাহ ও ভূয়া কাবিন করার সময় স্থানীয়রা তাকে জিগ্জাসা করিলে সে নিকাহ রেজিস্টার বহি রেখে কৌশলে সে পালিয়ে যায়। বর্তমানে মফিজকাজীর রেখে যাওয়া বহিটি স্হানীয় সাবেক ইউপি সদস্য জুরান এর নিকট জমা আছে।

এ ব্যাপারে মির্জাবাড়ী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন জানান, সে এবং তার সহযোগীরা দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকায় ভূয়া কাবিন করে আসছিল। বর্তমানে মির্জাবাড়ী ইউনিয়নের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত কাজী আব্দুল কদ্দুছের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান জেলা রেজিস্টার এর সাথে যোগাযোগ করে তার পরামর্শক্রমে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।